If you want to read amazing Facts in english Click here
sponsored

ব্লগ থেকে আয় করার 3 টি সেরা উপায় | ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায় ?

আপনার একাউন্টে সেই টাকা জমা হতে থাকে এবং ১০০ ডলার হয়ে গেলে আপনার টাকা আপনার ব্যাংক একাউন্টে চলে আসে।

ব্লগ থেকে আয় করার তিনটি সেরা উপায়


আমরা এর আগে ব্লগের বিষয়ে জেনেছি।  ব্লগ কি ? কিভাবে ব্লগ তৈরি করতে হয় ? ব্লগে কিভাবে লিখতে হয় সহ আরো বিভিন্ন বিষয়ের ব্যাপারে আমরা আগের আর্টিকেলে দেখেছিলাম। যদি আগের পোস্ট না দেখে থাকেন, এখনে ক্লিক করুন।

আজকের প্রতিবেদনে,
এইবার  আমরা দেখে নেবো কিভাবে ব্লগ থেকে টাকা আয় করা যায় ? ব্লগ থেকে আয় করার 3টি সেরা উপায় কি কি ?

আপনার যদি একটি প্রতিষ্ঠিত ব্লগ থেকে থাকে, তবে আপনার আয়ের বহু উপায় আছে। ব্লগের প্রধান কাজ হলো আপনার ব্লগারকে জনপ্রিয়তার শিখরে নিয়ে যাওয়া। তার পর সেখান থেকে এতো টাকা আসবে, যা হয়তো আপনি কখনো কল্পনাও করেন নি। একটি ভালো ব্লগ যেকোনো মানুষের জন্য একটি সোনার খনি মতো কাজ করে। যাই হোক, একটা মোটামুটি অডিয়েন্স বেস তৈরি হওয়ার পর সবচেয়ে জনপ্রিয় ও লাভজনক তিনটি উপায় নিয়ে নিচে আলোচনা করা হচ্ছে। 

ব্লগ থেকে আয়ের প্রধান তিনটে উপায় হলো

  1. Google Adsense
  2. Affiliate marketing
  3. product promotion

এই তিনটি পদ্ধতি খুবই জনপ্রিয়। এবং বর্তমানে পৃথিবীতে অসংখ্য ব্লগার এই তিনটি উপায়ে লক্ষাধিক টাকা আয় করছেন।

   চলুন একটু বিস্তারিত জেনে নিন।

১. গুগল এডসেন্স (Google Adsense)

নিচে দেখুন একটি বিজ্ঞাপন দেখানো হচ্ছে। যদি আপনি এই বিজ্ঞাপনে ক্লিক করেন তবে আমরা সর্বনিম্ন ভারতীয় টাকায় 0.75 পয়সা থেকে  15 টাকা অবধি আয় করতে পারি।

( আপনি চাইলে বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে আমাদের সাহায্য করতে পারেন )

আপনার মনে হতে পারে যে গুগল এডসেন্স (Google Adsense) 0.75 পয়সা থেকে 15 টাকা কিভাবে নির্ধারন হয় ? এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি গুগল এডসেন্স দ্বারা  একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইট থেকে অনলাইন ইনকাম করার সব থেকে সহজ এবং সব থেকে বিশ্বস্ত উপায়। 

আর বিজ্ঞাপনদাতা, কাস্টমারের লোকেশন, কোন বিষয়ের উপর বিজ্ঞাপন, কিওয়ার্ড ইত্যাদি অনেক কিছুর উপর নির্ভর করেই এই রেট উঠা নামা করে।

এডসেন্স গুগলের এমন একটি সার্ভিস যা সারা পৃথিবীতে বহু লোকের ফুলটাইম কর্মসংস্থান তৈরি করেছে। আপনি যদি ইউটিউবের কথা বলেন, ইউটিউবের ভিডিওর মাঝে যে অ্যাড চলে সেটাও এডসেন্সের মাধ্যমে চলে। ব্লগে আপনার ভিজিটরের ইন্টারেস্ট এর উপর নির্ভর করে তার ইন্টারেস্ট বা আগ্রহের মোতাবেক বিজ্ঞাপন দেখানো হয় গুগল এডসেন্স দ্বারা। আপনার ভিজিটর যদি সে বিজ্ঞাপনের ক্লিক করে তবে আপনার আয় হয় যদি ক্লিক না করে তবে কিছুই হয় না। বিজ্ঞাপন দেখানোর কোনো টাকা এডসেন্স দেয় না। প্রতি ক্লিক টাকা।

এই ভাবে আপনার একাউন্টে সেই টাকা জমা হতে থাকে এবং ১০০ ডলার হয়ে গেলে আপনার টাকা আপনার ব্যাংক একাউন্টে চলে আসে। ব্যাস এতোই সহজ এবং যেহেতু গুগলের প্রোডাক্ট তাই নির্ভরযোগ্যও বটে। তবে এতো সব কিছু করার জন্য গুগল এডসেন্স আপনাকে আপনার মোট আয়ের উপর 32% কমিশন চার্জ করবে। বাকি 68% আপনার অবশ্য সেখানেও আপনাকে সরকারের কাছে ট্যাক্স বা আয়কর দিতে হবে। তবে সেটা অন্য বিষয়।

সে যাই হোক, এডসেন্সের আর একটা বিষয়ে না বললেই নয়, আপনি তিনমাস পুরোনো এবং পনেরো কুড়িটি আর্টিকেল নিয়ে এডসেন্স অ্যাপ্লিকেশন করলেই আপনি অনুমোদন (approval) পেয়ে যাবেন। কিন্ত আপনার প্রথম প্রথম আয় হবে খুবই সামান্য।  এতো কম আয় হবে যে আপনার বিরক্ত লাগতে পারে। Google adsense থেকে প্রচুর টাকা আয় করার জন্য আপনার ব্লগে traffic বা visitors দেড় সংখ্যা ভালো হতে হবে। তাই visitors সংখ্যা কিভাবে বাড়াবেন সেটা ভাবুন। আয় আপনা-আপনিই হয়ে যাবে।

নিচের বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে আমাদের আর্থিকভাবে সাহায্য করুন।

২. এফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate marketing)

এফিলিয়াট মার্কেটিং এর ধারনা ? 
এফিলিয়েট মার্কেটিং করতেও আপনার ব্লগ বা চ্যানেল জনপ্রিয় ও প্রতিষ্ঠিত হওয়া উচিত।  যখন আপনার ব্লগে মোটামুটি একটু ভালো ভিজিটর বা দর্শক আসবে তখন আপনার অনলাইন আয়ের দ্বিতীয় জনপ্রিয় মাধ্যম এফিলিয়েট মার্কেটিং কাজে আসবে। এফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে আয় এডসেন্স থেকেও সোজা। এখানে আপনাকে শুধুমাত্র একটি লিঙ্ক দিতে হবে আর আপনার ভিজিটর যখন সেই লিঙ্ক থেকে গিয়ে কোনও পন্য বা পরিষেবা কিনবে আপনি তার থেকে কমিশন পাবেন। 

সহজে উদাহরণ দিয়ে বোঝাই,  
আমার জীবনে " think and grow rich " বইটি খুবই কাজে লেগেছে। বইটি লিখেছেন বিখ্যাত লেখক নেপোলিয়ান হিল। থিঙ্ক অ্যান্ড গ্রো রিচ লেখার আগে লেখক কুড়ি বছর ধরে একশোজন প্রতিষ্ঠিত লোকে স্টাডি করে লাখেছেন। এই বইটি আপনাকে বলবে কিভাবে আপনি আপনার জীবনে সাফল্যের শিখরে পৌঁছতে পারবেন।
আপনি 
 Think and grow rich by Napoleon Hill বইটি Amazon থেকে কিনতে পারেন। এখন 40% ডিসকাউন্ট চলছে। অথবা আপনি Free Pdf ebook  ডাউনলোড করতে পারেন এইখানে ক্লিক করে

এইতো হয়ে গেলো এফিলিয়েট মার্কেটিং। আমি যদিও বা আপনাকে বোঝানোর জন্যই বইয়ের উদাহরণ দিলাম, কিন্ত আপনি চাইলে যেকোনো কিছুই দিতে পারেন। Think and grow rich by Napoleon Hill আপনি চাইলেই লিংকে ক্লিক করে বই কিনতে পারেন।

এফিলিয়াতে মার্কেটিং অনেক সোজা জিনিস।
এখানে, আপনার ইনকাম commission হিসেবে দেয়া হয়। ক্লিক বা এড ভিউ হিসেবে এখানে কোনো আয় হয়না।

এফিলিয়াট মার্কেটিং কি ? 

Affiliate marketing সোজাসোজি একটা commission ইনকাম করার মাধ্যম।

আপনি যেকোনো জিনিস যা অনলাইনে বিক্রি হচ্ছে ও যেখানে বিক্রি হচ্ছে সেখানে এফিলিয়েট মার্কেটিং প্রোগ্রামা চালু আছে নিজের ব্লগে promote করে ইনকাম করতে পারেন। 

জনপ্রিয় বিভিন্ন অনলাইন store যেখানে এফিলিয়েট মার্কেটিং চালু আছে যেমন ইকমার্সে আছে AmazonFlipkart সহ অনেকে godaddy, bigrock, আছে হোস্টিং ডোমেন এর জন্য। ইন্সটান্ট লোনের জন্য আছে kreditbee (PABA3EJMY  রেফার কোড ব্যবহার করুন, ও ২০০০ টাকা পর্যন্ত ছাড় পান) money view ইত্যাদির মতো অনেক সাইট। 

আসলে প্রায় সবাই এফিলিয়েট প্রোগ্রামারের  মাধ্যমে নিজের বিক্রি বাড়াতে চায়। আমি এখানে সবার নাম নিতে পারছি না। একটু খোঁজ খবর নিলে আপনি নিজেই করতে পারবেন।

আর, এইভাবেই আপনি যেকোনো product এর affiliate link নিজের ব্লগে লাগিয়ে promote আর advertise করে unlimited commission ইনকাম করতে পারবেন।

মনেরাখবেন, আপনার advertise করা product বা জিনিসটি কেও কিনলেই আপনি  তার কমিশন পাবেন, না কিনলে কিচ্ছু না।

৩. লোকাল প্রোডাক্ট প্রমোশন (Local product promote)

Google adsense এবং affiliate marketing এর পর, ব্লগ লিখে টাকা আয় করার আরেকটা সহজ উপায় লোকাল প্রোডাক্ট প্রমোশন এইটা দিয়েও অনেক টাকা আয় সম্ভব।

যখন আপনার ব্লগে অনেক traffic ও ভিসিটর্স আসা শুরু হয়ে যাবে, তখন আপনি নিজের লোকাল এরিয়ার যেকোনো জিনিসের বা দোকানের এডভারটিসিমেন্ট নিজের ব্লগ এ করতে পারবেন। এটাকে লোকাল প্রোডাক্ট প্রমোশন বলে। এখানে আপনি ও আপনার বিজ্ঞাপনদাতার মাঝে কেউ থাকবে না। সুতরাং আপনার 32% কমিশন বাচবে, যেটা আপনি এডসেন্সে দিচ্ছিলেন। মানে পুরোটাই লাভ। এখানে অবশ্য আপনাকেই আপনার বিজ্ঞাপনদাতার খোজ করতে হবে ও তাদের সঙ্গে কথা বলতে হবে। এবং লোকাল প্রোডাক্ট প্রমোশনের একটা খারাপ বিষয় হলো, আপনাকে একটু বড় হতে হবে। একেবারে শুরুর দিকে যখন আপনার অডিয়েন্স কম তখন আপনার কাছে কেউ বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্য দেবে না। তবে এখানে আয় অনেকটা বেশি।আপনি আপনার আশেপাশে দোকান মালিক বা স্টোরের manager দের সাথে কথা বলে দেখতে পারেন। Advertisement বা product promotion এর জন্য।

আপনার মতামত জানতে আমরা আগ্রহী তাই একটি মন্তব্য করুন, যাতে আমরা এই বিষয়ে আপনার মতামত জানতে পারি।

এই নিবন্ধটি আপনার বন্ধুদের এবং পরিবারের সাথে শেয়ার করুন  তাঁদের এই বিষয়ের জ্ঞান অর্জনে সহায়তা করার জন্য।

আমাদের fb page এ  follow করুন ও আমাদের সঙ্গে যুক্ত থাকুন।

Post a Comment

Middle post ad 01