If you want to read amazing Facts in english Click here
sponsored

করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে যে খাবার গুলো খাদ্যতালিকায় রাখা উচিত।

আজ নতুন করে পশ্চিমবঙ্গের দৈনিক করোনাভাইরাস আক্রান্ত 21 হাজারের বেশি। দেশে 1লক্ষ 80 হাজার !

 আজ নতুন করে পশ্চিমবঙ্গের দৈনিক করোনাভাইরাস আক্রান্ত 21 হাজারের বেশি।        দেশে 1লক্ষ 80 হাজার ! 

এই অবস্থায় নিজেকে এবং নিজের পরিবারের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় আপনাকেই দায়িত্ব পালন করতে হবে। আপনি যদি সঠিকভাবে মাস্ক পরে বাইরে যান, শারীরিক দুরত্ব বজায় রাখেন, ও আপনার ভেক্সিন নিয়ে নেন, তবে আপনি অনেকাংশেই সুরক্ষিত। তবে আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকলে করোনা আপনাকে পেয়ে বসতে পারে। তাই আপনার চাই বিশেষ কিছু খাবার যা খেয়ে আপনি নিজের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে নিতে পারেন।

এই সময় প্রোটিন আপনাকে বিশেষভাবে সাহায্য করতে পারে।


তাই আজ আমরা পাঁচটি এমন খাদ্যের পরামর্শ আপনাকে দিতে চলেছি যেগুলি বর্তমান  করোনা পরিস্থিতিতে প্রোটিন ও আয়রন অভাব পূরণ করবে এবং আপনাকে উন্নত ইমিউনিটি সিস্টেম প্রদান করবে।

চলুন তবে শুরু করছি

বিভিন্ন ধরনের লেবু

কমলালেবু মৌসুম্বিলেবু বা পাতিলেবু বিভিন্ন ধরনের লেবু আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী খাদ্য তালিকায় প্রতিদিন  রাখুন।  এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে। আপনি যদি গরম জলে লেবুর রস মিশিয়ে প্রতিদিন সকালে খেতে পারেন তবে পেটের মেদ কমাতেও সাহায্য করতে পারে এই লেবু। তাছাড়া লেবুতে থাকে প্রচুর ভিটামিন-সি। আর ভিটামিন সি শ্বেত রক্তকণিকার তৈরিতে সাহায্য করে, যা আপনার রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতার এক অনন্য অস্ত্র।

বাদাম

চিনা বাদাম, কাঠ বাদাম, আখরোট বা কাজুবাদাম যেটাই খান না কেন আপনার শরীরে পৌছবে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন।  যা শরীরকে দীর্ঘক্ষন ধরে শক্তিশালী করে রাখতে সাহায্য করবে। তাছাড়া বাদামে আছে  "ভিটামিন-এ" ও  "ভিটামিন-ই" যা  আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

রসুন

কাঁচা রসুন অ্যান্টিফাঙ্গাল ও অ্যান্টিসেপটিকের গুণে সমৃদ্ধ। রসুন ঠান্ডা লাগা, কাশি, সর্দি, ভাইরাল ফিভারের থেকে মুক্তি পেতেও আপনাকে সাহায্য করে। রসুনে রয়েছে ভিটামিন সি, বি ১, বি ৬ এবং ফসফরাস ও আয়রন। তাই খাবারে রসুন অবশ্যই রাখুন তবে বেশি কাঁচা রসুন খেতে যাবেন না হৃতে  বিপরীত হতে পারে। 

মিষ্টি  আলু     

মিষ্টি আলুতে থাকা "ভিটামিন-এ" আর ফাইবার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। রাঙা আলু হজম হতে একটু দেরি হয় তাই দীর্ঘক্ষণ পেট ভরা রাখে। এবং এর থেকে এনার্জিও বেশি পাওয়া যায়। তরকারিতে বা পুড়িয়ে  খেতে পারেন রাঙা আলু বা মিষ্টি আলু। 

কাঁচা হলুদ

আয়ুর্বেদে  হলুদকে ওয়ান্ডার ড্রাগ বলে ডাকা হয়, কারন এটি নানা ধরনের রোগের সঙ্গে লড়াই করার জন্য শরীরকে তৈরি করে রাখে। প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে মধু সহযোগে কাঁচা হলুদ আপনাকে একটা এক্সট্রা বুস্ট দিতে পারে। তাছাড়া রাতে গরম দুধের সঙ্গে এক চিমটে হলুদ গুঁড়ো মিশিয়েও খেতে পারেন। হলুদের বিষয়ে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন  

এখন আপনি Follow করতে পারেন আমাদের ও পেতে পারেন বিভিন্ন ইন্টারেস্টিং ইনফরমেশন আপনার মেইল বক্সে।

ফলো করুন 

1 comment

  1. Nice article bro

Middle post ad 01