how to buy bitcoin in india full details in bengali | fanfact.in

ভারতে বিটকয়েন কিভাবে কিনবেন? আর সর্বনিন্ম কত টাকা বিনিয়োগ করতে হবে?


bitcoin এর দাম ক্রমেই বেড়ে চলেছে। এবং এই কারনেই সম্প্রতি আমাদের মধ্যে বেশ  জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে bitcoin। ভারতীয়রাও কিন্তু পিছিয়ে নেই, বরং trading investment instruments হিসাবে bitcoin এর প্রতিষ্ঠা অর্জনে সর্বাত্মক চেষ্টা করছে ভারতীয়রা ।

কয়েক বছর আগে, ভারতে bitcoin কেনা একটু কঠিন ছিল। কিন্তু আজ অবস্থা অনেক পরিবর্তন হয়েছে এবং bitcoin কেনা বেশ সহজ হয়ে গেছে।

এই আর্টিকেলে আমরা সকল নতুনদের bitcoin কিনতে সাহায্য করার জন্য, bitcoin কি, কিভাবে কিনতে হবে, কোথা থেকে কিনতে হবে,ভারত সরকারের নীতি কি ইত্যাদি বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। 

 তাহলে আসুন প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর এক এক করে দেই।

Bitcoin কি?

Bitcoin একটি cryptocurrency । আর একটা ডিজিটাল লেনদেন প্রণালী। bitcoin যে কোন সাধারণ কয়েনের মতোই, কিন্তু physically উপলব্ধ নয়। অর্থাৎ বিটকয়েন অনলাইনে বা বাইনারী সিস্টেমে আপনি দেখতে পাবেন কিন্তু bitcoin কে আপনি কখনো হাতে ধরতে পারবেন না। bitcoin পুরোপুরি একটি ইলেকট্রনিক সিস্টেমের মাধ্যমে চলে। bitcoin পৃথিবীর যেকোন জায়গায় তাৎক্ষণিক হস্তান্তর করা যায়। Bitcoin পৃথিবীর প্রথম বিকেন্দ্রীকরণ (decentralized) ডিজিটাল কারেন্সি । বিটকয়েন কোন সরকার বা কোন সংস্থা দ্বারা নিয়ন্ত্রিত বা অধীনস্থ নয়।

 ভারতে বিটকয়েন কিভাবে কিনবেন?

ভারতে আপনি কিছু বিশ্বাসযোগ্য বিটকয়েন অ্যাপের মাধ্যমে বিটকয়েন কিনতে পারেন। এরকম অ্যাপ ভারতে অনেক আছে। যেমন কিছু অ্যাপ এর নাম আমি উদাহরন স্বরূপ এখানে বলছি wazirx , Zebpay, UnoCoin, CoinSecure, coinswitch kuber ইত্যাদি। বিটকয়েন কেনার সবথেকে ভালো প্ল্যাটফর্ম কোনটা সেটা আপনাকেই দেখে নিতে হবে। কারন আমরা আপনাকে কোন সাজেশন দেব না। আপনার যে প্ল্যাটফর্ম ভালো লাগবে আপনি সেখান থেকেই বিনিয়োগ করবেন।

 ভারতে বিট কয়েন কিনতে গেলে সর্বনিম্ন কত টাকা বিনিয়োগ করতে হবে?

 বর্তমানে একটি বিটকয়েনের মূল্য ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় 45 লক্ষ টাকার উপর। যেটা একমাস আগেও 30 লক্ষ টাকার মতো দাম ছিল। 35% দাম বেড়েছে মাত্র একমাসে।  কিন্তু বিনিয়োগ শুরু করার জন্য আপনাকে পুরো একটা বিট কয়েন কেনার প্রয়োজন নেই। আপনি বিটকয়েনের একটা ছোট অংশ কেনা দিয়েও বিনিয়োগ শুরু করতে পারেন। তবে বেশিরভাগ প্ল্যাটফর্ম মোটামুটি 500 টাকার একটা ন্যূনতম রাশি বেঁধে দিয়েছে। বিটকয়েনের লেটেস্ট দাম জানার জন্য আপনি এখানে Click করতে পারেন।

ভারতে বিটকয়েন কেনার জন্য আইনি  প্রক্রিয়া কি কি?

সর্বপ্রথম আপনাকে KYC(know your customer) করাতে হবে। এবং তার জন্য আপনার প্যান কার্ড এবং ভারত সরকার দ্বারা বৈধ একটি প্রমাণ পত্র জমা দিতে হবে। তাছাড়া একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকা আবশ্যক। সুনিশ্চিত করতে হবে যে প্যান কার্ড এবং ব্যাংক অ্যাকাউন্ট যেন একই ব্যক্তির হয়। KYC প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে সাধারণত দুই থেকে তিন দিন লাগে । তারপর আপনি বিটকয়েনে  বিনিয়োগ করার জন্য একদম তৈরি।

বিটকয়েন ওয়ালেট কিভাবে সেট করবেন?

বিভিন্ন cryptocurrency platform আপনার জন্য সুনিশ্চিত করে যে আপনার কাছে একটা বিটকয়েন ওয়ালেট যেন থাকে। যার সাহায্যে আপনি বিটকয়েন কিনতে এবং ওয়ালেটে সংরক্ষণ করতে পারেন। যখন আপনি কোন প্লাটফর্মে সাইন আপ করেন তখনই আপনার জন্য একটা ওয়ালেট তারা আপনাকে প্রদান করে এবং আপনার ওয়ালেট তখনই স্বয়ংক্রিয়ভাবে সেট হয়ে যায় ।

বিটকয়েনের থেকে যে মুনাফা আসে তাতে কি ট্যাক্স দিতে হয়?

ভারত সরকারের ট্যাক্স সিস্টেম অনুযায়ী যেকোনো বিনিয়োগের থেকে পাওয়া যেকোনো মুনাফার উপরেই ট্যাক্স দিতে হয়। তাহলে অবশ্যই আপনাকেও ট্যাক্স  দিতে হবে।  আপনাকে 3 বছরের নিচের নিবেশের উপর মুনাফার 30% ট্যাক্স দিতে হবে। এবং তিন বছরের উপরে 20% ট্যাক্স দিতে হবে। 

বিটকয়েন ছাড়া অন্য কোন cryptocurrency কি কি?

বিটকয়েন ছাড়াও এখন বর্তমানে সাড়ে 6  হাজারের উপরে ক্রিপ্টোকারেন্সি আছে  কিছু নাম নিচে দিলাম ।


সংক্ষেপে বিটকয়েনের কিছু সুবিধা আছে এবং কিছু অসুবিধাও আছে । ঝুঁকি নেয়ার জন্য তৈরি থাকুন। অনেক অনেক জানুন, পড়ুন এবং জেনে বুঝে তারপর বিনিয়োগ করুন। এবং একটা বিশেষ পরামর্শ যেকোনো বড় বিনিয়োগের আগে একটু পরীক্ষা করে নেয়া জরুরি। এবং প্রতিষ্ঠিত ক্রিপ্টোকারেন্সিতে বিনিয়োগ করুন। কারণ সব cryptocurrency সবসময় ভালো হবে এমন কোন কথা নেই।



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ