ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করার সঠিক নিয়ম। how to use credit card in bengali

 ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করার সঠিক নিয়ম।


আমরা সবাই ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করতে ভালবাসি। আর ক্রেডিট কার্ড কোম্পানি আমাদের যখন যা খুশি যখন খুশি আমরা কিনতে চাই তা কেনার আর্থিক স্বাধীনতা দিয়ে থাকে। এবং যখনই আমরা কখনো আর্থিক সমস্যায় পরি আমাদের সেই সমস্যার সমাধানের ক্ষেত্রেও ক্রেডিট কার্ড কিছুটা হলেও আমাদের আর্থিক সাহায্য করে। এবং তা ছারাও সব ব্যাঙ্কের ক্রেডিট কার্ডেই থাকে reword points এবং বিভিন্ন ধরনের online discount ও gift card এর ছড়াছড়ি।

তবে, অনেক সুবিধা থাকা সত্ত্বেও, সঠিক উপায়ে ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার না করলে আপনি পরতে পারেন নানা সমস্যায়। একটি ভুল পদক্ষেপ এবং আপনি পরে যাবেন debt trap এ (এমন একটি পরিস্থিতিতে যেখানে ঋণ পরিশোধ করা কঠিন বা অসম্ভব, কারণ higher intrest rate আপনার preicipal amount পরিশোধে বাধা দেয়।)  তাই আপনাকে অবশ্যই জানা উচিত যে আপনার ক্রেডিট কার্ডে কি কি করা উচিত আর কি কি করা একদম উচিত নয়।  আপনার সুবিধার জন্য আমরা এইখানে দারুণ এবং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কিছু স্মার্ট টিপস আপনাকে দিচ্ছি যাতে আপনি আপনার ক্রেডিট কার্ডের সুবিধা নিতে পারেন কোনো রকম টেনশন ছাড়াই। 

দেখে নিন ঃ


1. আপনার ক্রেডিট কার্ডের ব্যবহারের অনুপাত কম রাখুন।


আদর্শগতভাবে, আপনার ক্রেডিট কার্ডের বালেন্সের  50% এরও কম হওয়া উচিত আপনার usage । মানে আপনার ক্রেডিট কার্ডের লিমিটের পঞ্চাশ শতাংশ বা তারও কম ব্যবহার করা উচিত। না হলে আপনার ক্রেডিট স্কোরে বিরূপ প্রভাব পরতে পারে। তা ছাড়া যদি কখনো আপনি অন টাইম পেমেন্ট করতে না পারেন তবে পুরো আউটস্ট্যান্ডিং এর উপর আপনাকে সুদ এবং ফাইন দিতে হবে। আর ক্রেডিট কার্ডের সুদ বার্ষিক 30% থেকে 40% পর্যন্ত হতে পারে । তাই over use করবেন না।

2.  সময়মতো ক্রেডিট কার্ডের বিল পরিশোধ করুন।

এই টিপটি যতটা সহজ শোনাক পালন করা ততটা সহজ নাও হতে পারে। অনেকে এটিকে উপেক্ষা করেন কিন্তু আগেই বলেছি ক্রেডিট কার্ডগুলি বকেয়া ব্যালেন্সগুলিতে(outstanding balance) একটি উচ্চ-সুদের হার ধার্য করে। আপনি যদি সময়মতো আপনার বিল পরিশোধ না করেন তবে সুদের পরিমাণ বেড়ে যায় এবং আপনার ঋণের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। এবং যদি আপনি বিল পরিশোধ না করেন, তাহলে ব্যাংক আপনাকে শুধু জরিমানা করেই শান্ত হবে না, ব্যাংক আপনার ক্রেডিট স্কোরও কমাতে থাকবে।  

সুতরাং, আপনি যদি ক্রেডিট কার্ডের চরা সুদের হাত থেকে নিজেকে বাচাতে এবং ক্রেডিট স্কোর ঠিক রাখতে চান, অবশ্যই autopay enable করে রাখবেন যাতে আপনার due date এর আগে আপনার একাউন্ট থেকে স্বয়ংক্রিয় পেমেন্ট হয়ে যায়।


3. মিনিমামের চেয়ে বেশি প্রদান করুন।


আপনার ক্রেডিট কার্ডগুলিতে মিনিমাম পেমেন্ট প্রদান যথেষ্ট নয়। ভারী সুদের হাত  এড়াতে, বকেয়া(outstanding amount) পুরো অর্থ প্রদান করা খুব ভালো, কিন্তু যদি  আপনি পুরো অর্থ প্রদান করতে না পারেন তবে কমপক্ষে মিনিমামের চেয়ে বেশি পেমেন্ট  করুন। 


4. এটিএম থেকে আপনার ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে টাকা তোলা এড়িয়ে চলুন।


হ্যাঁ, ক্রেডিট কার্ডগুলি আপনাকে এটিএম থেকে নগদ টাকা  উত্তোলনের সুবিধা দেয়। কিন্তু আপনি এটি কক্ষনো করবেন না।
কেন? কারণ ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে এটিএম থেকে টাকা তোলার দিন থেকেই কিছু  ভারী চার্জ এবং সেই চরা সুদ গোনা শুরু হয়ে যায়  যা আপনাকে আরও দেনায় জর্জরিত করতে পারে । আর
 এটিএম থেকে cash withdrawal করলে কোনও ছাড় ও পাওয়া যায় না।  তাই এটিএম উত্তোলন থেকে দূরে থাকবেন ।

5. Joining ফি এবং renewal ফি এর বিষয়ে সচেতন হন।

যেকোনো ব্যাঙ্ক অথবা ক্রেডিট কার্ড প্রোভাইডারের থেকে ক্রেডিট কার্ড নেওয়ার আগে অবশ্যই জয়েনিং ফি এবং রিনিয়াল ফি কত তা জেনে নিন। কারন, না জেনে আপনি হয়তো এমন কোনো কার্ডের জন্য আবেদন করলেন যেটা শুনতে ভালো লাগলেও কাজের বেলায় লবডঙ্কা। মানে বছরে আপনাকে যত টাকার অফার বা ডিসকাউন্ট দিচ্ছে তার থেকে বেশি আপনার কাছ থেকে চার্জ নিচ্ছে রিনিউয়াল ফি নিচ্ছে। সাধারণত বেশিরভাগ ক্রেডিট কার্ড প্রোভাইডার জয়েনিং ফি 500 টাকা বা তারও কম নেয়। কিছু কিছু ব্যাঙ্ক ফ্রি জয়েনিং ফি অফার দিয়ে থাকে। এবং বেশিরভাগ সময়ই রিনিউয়াল ফি একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ খরচের পর মুকুব হয়ে যায়।  এই বিষয়গুলো সম্পর্কে আগেই দেখে নিন। 

6. ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে আপনি শুধু মাত্র জরুরী  এবং দরকারী জিনিসই কেনা কাটা করুন।

হ্যাঁ আপনি চাইলে যা ইচ্ছা তাই কিনতে তো অবশ্যই পারেন। কিন্তু ক্রেডিট কার্ড দিয়ে যদি আপনি ছোটোখাটো বা খুচখাচ কেনাকাটা শুরু করেন তাহলে সেটা আপনার অভ্যাসে পরিণত হবে এবং মাসের শেষে যখন বিল আসবে অনেক সময়ই আপনি অবাক হয়ে যাবেন এই ভেবে যে আমি এটা কখন কিনলাম? তাই আমাদের পরামর্শ ক্রেডিট কার্ড দিয়ে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় বা গুরুত্বপূর্ণ জিনিসই কিনুন। না হলে মাসের শেষে আপনার বাজেট মেনটেইন করতে একটু অসুবিধা হতে পারে।

7.  যদি আপনার ক্রেডিট কার্ড হারিয়ে বা চুরি হয়ে যায় ?

যদি আপনার ক্রেডিট কার্ড হারিয়ে বা চুরি হয়ে যায় এক সেকেন্ড ও সময় নষ্ট না করে আপনার ব্যাঙ্ক অথবা ক্রেডিট কার্ড প্রোভাইডারের সঙ্গে ফোনে অথবা সরাসরি  যোগাযোগ করুন, এবং যত তারাতারি পারবেন কার্ড ব্লক করুন। কারন এখনকার বেশিরভাগ ক্রেডিট কার্ডেই কন্টাক্টলেস পেমেন্টের সুবিধা থাকে। এবং কন্টাক্টলেস পেমেন্টের সাহায্যে কোনো ওটিপি বা পাসওয়ার্ড ছাড়াই যে কেউ ইচ্ছা করলে আপনার ক্রেডিট কার্ড থেকে টাকা গায়েব করে দিতে পারে। অবশ্য দৈনিক পাঁচ হাজার টাকার একটা সীমাবদ্ধতা রয়েছে,  তবুও এটা নিয়ে আপনি একেবারেই অবহেলা করবেন না।


এই সাতটি নিয়ম মেনে যদি আপনি ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করেন, আমরা আশাকরি আপনার কোনো সমস্যা হওয়ার কথা নয়।  যদি আপনার আরো কিছু জানার থাকে financial advice সমন্ধে নির্দ্বিধায় আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। 
ভালো লাগলে শেয়ার অবশ্যই করুন।
-:‌ধন্যবাদ:-

এখন আপনি Follow করতে পারেন আমাদের ও পেতে পারেন বিভিন্ন ইন্টারেস্টিং ইনফরমেশন আপনার মেইল বক্সে।

ফলো করুন 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ