কম খরচে বাড়িতেই তৈরি করুন রাসায়নিকমুক্ত দাঁতের মাজন

বাজার থেকে কেনা দাঁতের মাজনগুলিতে প্রায়শই ক্ষতিকারক রাসায়নিক যেমন ,ফ্লোরাইড, সোডিয়াম লুরাইল সালফেট (SLS) এবং ট্রাইক্লোস্যান থাকে। তাই ....
প্রতিকি ছবি

দাঁত ও মাড়ির সুরক্ষায় রাসায়নিকমুক্ত দাঁতের মাজন: তৈরির পদ্ধতি ও উপকারিতা

বাজার থেকে কেনা দাঁতের মাজনগুলিতে প্রায়শই ক্ষতিকারক রাসায়নিক থাকে যা আপনার দাঁত ও মাড়ির ক্ষতি করতে পারে। এগুলিতে ফ্লোরাইড, সোডিয়াম লুরাইল সালফেট (SLS) এবং ট্রাইক্লোস্যান থাকে যা দাঁতের এনামেল ক্ষয় করতে পারে, মাড়ির প্রদাহ সৃষ্টি করতে পারে এমনকি ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়াতে পারে।

আপনি যদি আপনার দাঁত ও মাড়ির স্বাস্থ্যের জন্য উদ্বিগ্ন হন তবে আপনি বাজার থেকে পেস্ট না কিনে বাড়িতেই রাসায়নিকমুক্ত দাঁতের মাজন তৈরি করতে পারেন। এটি খুবই সহজ এবং সস্তা।

বাড়িতে রাসায়নিকমুক্ত দাঁতের মাজন তৈরির জন্য নিম্নলিখিত উপকরণগুলির প্রয়োজন হবে:

 বেকিং সোডা: 

বেকিং সোডা একটি প্রাকৃতিক এনামেল সাফাইনার যা দাঁতকে সাদা করে এবং মাড়ির প্রদাহ কমায়।

 নারকেল তেল: 

নারকেল তেল একটি প্রাকৃতিক অ্যান্টিসেপটিক যা দাঁতের ক্ষয় রোধ করে এবং মাড়ির প্রদাহ কমায়।

লবণ: 

লবণ একটি প্রাকৃতিক জীবাণুনাশক যা দাঁতের ক্ষয় রোধ করে এবং মাড়ির প্রদাহ কমায়।

পেপারমিন্ট অয়েল: 

পেপারমিন্ট অয়েল একটি প্রাকৃতিক ঠান্ডা ও শীতলকারী যা দাঁত মাজতে এবং মাড়ির প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে।

বাড়িতে রাসায়নিকমুক্ত দাঁতের মাজন তৈরির পদ্ধতি:

১. একটি বাটিতে বেকিং সোডা, নারকেল তেল এবং লবণ একসাথে মিশিয়ে নিন।

২. পেপারমিন্ট অয়েল যোগ করুন এবং ভাল করে মিশিয়ে নিন।

৩. আপনার দাঁত ব্রাশ করার সময় এই মিশ্রণটি ব্যবহার করুন।

৪. মুখ ধুয়ে ফেলুন।

আপনি এই মিশ্রণটি একটি কাচের বোতলে সংরক্ষণ করতে পারেন এবং প্রতিদিন ব্যবহার করতে পারেন।

রাসায়নিকমুক্ত দাঁতের মাজন ব্যবহারের সুবিধাগুলি:

1. দাঁত ও মাড়ির স্বাস্থ্যের উন্নতি করে।
2. দাঁতকে সাদা করে।
3. মাড়ির প্রদাহ কমায়।
4. ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়।
5. সস্তা এবং সহজলভ্য।

আপনি যদি আপনার দাঁত ও মাড়ির স্বাস্থ্যের জন্য সচেতন হন তবে আপনি আজই বাজার থেকে পেস্ট না কিনে বাড়িতেই রাসায়নিকমুক্ত দাঁতের মাজন তৈরি করে ব্যবহার শুরু করুন।



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন